1. sm.bright420@gmail.com : Asok Halder : Asok Halder
  2. paulsazal16@gmail.com : Sazal Paul : Sazal Paul
  3. rnshakil.cnc@gmail.com : Shafiul Shakil : Shafiul Shakil
  4. sm.bright22@gmail.com : Sujit Mandal : Sujit Mandal
  5. takiakhan109@gmail.com : Takia BSMMU : Takia BSMMU
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন

ডাক্তারদের নিয়ে লিখলেন নার্স শ্রাবনী

  • আপলোডের সময়ঃ মঙ্গলবার, ২১ এপ্রিল, ২০২০
  • ২৭৮৫ বার দেখা হয়েছে।
বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ডাক্তারদের আমরা সাধারনত সৃষ্টিকর্তার পরের স্থানে রাখি । কারন ডাক্তাররা তাদের জীবন বাজী রেখে আমাদেরকে সুস্থ্য করে তোলেন । কিন্তু সেই ডাক্তারদের বিভিন্ন সময় জনগনের কাছ থেকে বিভিন্ন ধরনের খারাপ কথা শুনতে হয় । ডাক্তারদের নিয়ে লিখেছেন বরিশাল নার্সিং কলেজের সদ্য পাশকৃত নার্স শ্রাবনী রায় । তার ফেসবুক পোস্ট থেকে পাঠকদের জন্য সরাসরি তুলে ধরা হলো

ডাক্তারদের সম্পর্কে কিছু কথাঃ-
আজকাল ডাক্তার দের সম্পর্কে অনেক কথাই শুনি৷ এই করণা পরিস্থিতিতে তাদের বদনামের শেষ নাই৷ সে সব কথা না হয় উল্লেখ না ই করলাম৷ আমার ব্যক্তিগত কিছু কথা বলি। নার্সিং পড়তে এসে জানলাম ডাক্তার এবং নার্সদের মধ্যে নাকি এক কোল্ড ওয়ার সবসময় ই চলতে থাকে। যেটার সাথে পরিচিত আমি এর আগে ছিলাম না৷ আমার মা ও একজন নার্স। সেই সুবাদে ছোটবেলা থাকেই হাসপাতালে যেতে হয়েছে৷ বেড়ে ওঠা ও বলতে গেলে ওখানেই৷ বাবা শিক্ষক তাই বাসায় থাকত না সারাদিন নিরুপায় হয়ে মার সাথেই যেতে হত৷ সব ডাক্তারদেরই মামা ডাকতাম৷ তাদের ভালবাসার ও কমতি ছিল না৷ আমরা যে কোয়াটারে থাকতাম তার সামনেই ডাক্তার কোয়াটার ছিল। প্রতিদিন সন্ধ্যায়ই আমাদের বাসায় চায়ের আড্ডা হত৷ মামারা আসতেন। আমি তাদেরকে বিভিন্ন নামে ডাকতাম। যেমনঃ চাঁদ মামা, ভাল মামা, পাহাড় মামা ইত্যাদি৷ শুধু যে আমার সাথেই এমন হত তা না৷ ওই কোয়াটারে ছোট যারা ই ছিল তারাই মামাদের খুব পছন্দ করতাম৷ তারা ও আমাদের অনেক ভলবাসত গিফ্ট দিত। সবার নাম তো মনে নেই তবে কয়েক জনার নাম বলছি, ডাঃ মফিজুল ইসলাম লিটু, ডঃ সায়মন, ডাঃসিরাজ, ডাঃ ইকবাল ইত্যাদি৷ পুরো নাম মনে নেই। এখনও শেবাচিমে তাদের সাথে দেখা হয় তারা প্রথমই বলেন তুমি গীতা নার্সের মেয়ে না? সে কেমন আছে, তুমি কেমন আছ, পাড়ালেখা কেমন চলে ইত্যাদি ইত্যাদি। এখানে তাদের মধ্যে আন্তরিকতা ছাড়া কিছুই চোঁখে পড়ে না আমার।
★ এখন আসল কথায় আসি। যে জন্য আমার এই কথা বলা৷ ডাক্তার রা নাকি করনার কারনে ভয়ে পালিয়ে যান। কিন্তু নলছিটি হাসপালে তার ব্যতিক্রম ঘটে প্রতিনিয়ত। কাল আমার ভাইজি মারা গেল। আপন নয় তবে তার থেকেও বেশি৷ সারাটা দিন আমাদের বাসায় আসত। ও বলত মা নাকি ওর সখী। যা ই হোক ফুলের মত মেয়েটা হঠাৎ করে মারা গেল। কত নিউজ চ্যানেলে নিউজ ও হল। ওর কোন করনার লক্ষ্যন ছিল না। তবুও উঠে গেল” করনা করনা” সব লোক সরে গেল৷ নিজের আপন কাকা ও এলনা ওর কাছে৷ হাসপাতালের সমস্ত সমস্যা সহ্য করলেন ডাক্তাররা৷ ওর বাবা ক্লিনার ওই হাসপাতালেরই৷ সাহায্য ই না, পকেট থেকে টাকা তুলে দিলেন যে যা পারলেন। নিজেরা ভ্যান ডাকলেন যেখানে কোন ভ্যান ই যেতে রাজি হচ্ছিল না৷ মেয়ের বাবা একা মেয়েকে তুলতে পারছিল না তারাই তুলে দিলেন৷ শ্মশানে কেউ যেতে রাজি হল না৷ দু জন ডাক্তার গেলেন৷ পোড়াতে দেবে না বাঁধা এল৷ তারাই সামলালেন৷ শ্মশানে দাঁড়িয়ে ছিলেন মাত্র মেয়েটার বাবা, আমর বাবা আর ওই দুজন মুসলিম ডাক্তার। যদি পারত তারা হয়তো পোড়াতেও সাহায্য করত৷ এক ঘন্টা পর বহু কষ্ট করে কিছু মানুষ এল৷ বাবা সারা রাত ঘুমাতে পারেনি। সাথে আমরাও। কারন বৃষ্টি কখনও আমাদের থেকে আলাদা ছিল না৷ ও পরিবারের একজনই হয়ে ছিল৷ সারাদিন বাবা ওই দুজন ডাক্তারের গল্প করেছে৷ যখন বাবা একা মেয়ের মুখাগ্নি করে তখন তারা পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন। মা সারা দিন বলেছেন কত কষ্ট করে কত ঝামেলা করে ডাক্তার রা মেয়েটাকে ভালভাবে হাসপাতাল থেকে বের করেছেন!!!
* তাই বলতে চাই ডাক্তার দের প্রতি শ্রদ্ধা ব্যতিত আমার কাছে আর কিছুই নাই৷ আপনারা যারা তাদের নিয়ে সমালোচনা করেন তারা একবার ভাবেন তো, যদি কোন ডাক্তার চিকিৎসা না দিত তবে কোথায় যেতেন৷ যদি ডাক্তারদের মানবতা না থাকত তবে কত মানুষ বিনা চিকিৎসায় মারা যেত!! ভাই চাঁদের ও কলঙ্ক থাকে তারা তো মানুষ৷ হয়তো ২,১ জন্য আপনাদের পছন্দ সই নয় তাই বলে যারা নিজেদের জীবন বিলিয়ে দিয়েছে আপনাদের জন্য নিজের পরিবারের কথা ভুলে দেশের এই সংকট কালীন পরিস্থিতিতে, দয়া করে ভাল বলতে না পারেন তাদের বদনাম করবেন না৷

বিজ্ঞাপন

One response to “ডাক্তারদের নিয়ে লিখলেন নার্স শ্রাবনী”

  1. ashok says:

    ধন্যবা, দিদি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বিডিনার্সিংনিউজ.কম
কারিগরি সহায়তায়- সুজিৎ মন্ডল