1. sm.bright420@gmail.com : Asok Halder : Asok Halder
  2. paulsazal16@gmail.com : Sazal Paul : Sazal Paul
  3. rnshakil.cnc@gmail.com : Shafiul Shakil : Shafiul Shakil
  4. sm.bright22@gmail.com : Sujit Mandal : Sujit Mandal
  5. takiakhan109@gmail.com : Takia BSMMU : Takia BSMMU
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৪৮ অপরাহ্ন

চলমান ঘটনা : বর্তমান ডিজিএনএম- অজয় বিশ্বাস

  • আপলোডের সময়ঃ শনিবার, ৬ জুন, ২০২০
  • ৭৯২ বার দেখা হয়েছে।
চলমান ঘটনাঃ বর্তমান ডিজিএনএম
বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

অজয় বিশ্বাস

সমালোচনা, আত্মসমালোচনা সর্বক্ষেত্রেই গঠনমূলক হওয়া বাঞ্চনীয়। ঢালাও ভাবে কাউকেই আত্মপক্ষ সমর্থন ছাড়া দোষারোপ করা থেকে আমাদের বেড়িয়ে আসতে হবে। মনে রাখতে হবে কাউকেই কোন রুপ আত্মপক্ষ সমর্থন ছাড়া অভিযুক্ত করলে অভিযোগকারীর অভিযোগের প্রেক্ষাপটের শেষাব্দী ফলাফল কখনো স্বাস্থ্যসম্মত হয়না!

১. বর্তমান ডিজিএনএম এর পরিচালক( শিক্ষা, প্রশাসন) জনাব মোহাম্মদ আব্দুল হাই পিপিএ নিঃসন্দেহে একজন নার্স বান্ধব পরিচালক। তাঁর যোগদানের পর থেকে অনেক ইতিবাচক কাজের জন্য সাধারণ নার্স মহলে ব্যাপক জনপ্রিয় এবং প্রশংসিত। দ্রুত রেসপন্স, সমাধানের জন্য আশস্ত, ফেইসবুকে স্টেটাসের মাধ্যমে অনেক কাজের আপডেট, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে সাধারণ নার্সদের সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ স্থাপন, নার্সদের কাজের প্রশংসা এবং উৎসাহদান করার মাধ্যমে ধীরে ধীরে সাধারণদের মাঝে অসাধারণ ভাবমূর্তি তৈরি করতে পেরেছেন।
সেক্ষেত্রে সত্যিই তিনি এর প্রশংসার দাবিদার।

২. আমাদের ডিজি জনাব সিদ্দিকা আক্তার ম্যাডাম সাধারণ নার্সদের কাছে বেশ কম পরিচিত। হয়ত নিভৃতে কাজ করতেই বেশি পছন্দ করেন। যার কারণে সবাই মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যারের দিকেই তাকিয়ে থাকেন। উনিও কিন্তু বেশ কর্মপটু। সাধারণদের সমস্যার সমাধান কল্পে উনারও রয়েছে প্রশংসনীয় অবদান। আমরা চাই উনি আরও বেশি করে পরিচিত এবং জনপ্রিয় হয়ে উঠুক সাধারণদের মাঝে।

৩. বর্তমান প্রেক্ষাপটে দালাল শব্দটি ব্যপকভাবে ব্যবহৃত! নিজে ভালো মানুষ সাজতে গিয়ে এবং অন্যের বাহবা পাওয়ার ধান্ধায় ঢালাও ভাবে সবাইকে এরা একই গালি দিয়ে যাচ্ছে।
তবে কথা হচ্ছে,
★সবাই কি দালাল?
★কারো সহমর্মিতা বা সহযোগিতার দরুন রিকোয়েস্ট করলে সেটা কি দালালি??
আমি মনে করি না! কারণ কোন প্রকার উৎকোচ ছাড়া কোন ধরনের কাজের রিকমেন্ডেশন করলে এটা দালালী হিসেবে বিবেচিত হয়না।

৪. আমরা জানি ডিজিএনএম অধীন কোন প্রকার বদলি কারো রেফারেন্স ছাড়া হয়না। কেউ না কেউ পরিচিত জনদের মাধ্যমে রেফারেন্স বা রিকমেন্ডেশন করিয়ে থাকেন। আমরা পূর্বের বদলিতে দেখিছি যারা সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত তাদেরও দ্রুত শুধুমাত্র ভালো রেফারেন্সের কারণে একমাসের মধ্যেই বদলি হতে সক্ষম হয়েছেন। তাহলে কি যারা এই বদলির জন্য রিকমেন্ডশন করেছেন তাদের আমরা দালাল বলব??
তাহলে তো দালালের বাইরে কেউ থাকলনা! শুধুমাত্র উৎকোচ নিয়ে কাজ করলেই তাকে দালালী বলা চলে।

৫. আমরা নেতাদের অনেক সময় অযথা দোষারোপ করতে পছন্দ করি। আরে ভাই আপনি আমি পেশার জন্য কি করেছি?? কত সময় পেশার উন্নয়নে ব্যয় করেছি? কখনো কি জানতে চেয়েছি যে,,,
★ একটা সংগঠন কি ভাবে চলে??
★ সংগঠনের পিছনে আপনার আমার কত টুকু পরিশ্রম রয়েছে?
★কিভাবে, কোন অর্থায়নে পরিচালিত করেন নিজ নিজ সংগঠন বা কেন্দ্রীয় সংগঠন?
★ পেশার স্বার্থে সংগঠনকে সচলায়তন রাখতে আপনার শারিরীক, মানসিক, আর্থিক পরিশ্রম কতটুকু?
★ একটা সংগঠন চালাতে তাদের কি পরিমান পরিশ্রম, অর্থ ব্যয়হয় তা জানতে চেয়েছি??
★ এই দূর্যোগকালীন বিভিন্ন সমস্যায় নার্সদের পাশে ডিজিএনএম এর পর কিন্তু এই ভাংগাচূড়া( অনেকের ভাষায়) নেতারাই ছিল আমি আপনি নই!

যদি নাই চাই তবে এত ঢালাওভাবে মন্তব্য করা কেন?
কেন সবাইকে একই কাতারে ফেলিয়ে গুলিয়ে ফেলানো? নেতারা তাই দু’একটা কাজের রিকমেন্ডেশন নিয়ে যেতেই পারেন। কারণ, তাদের কাছেও সাধারণরা যায়। তদেরকেও কিছুটা মূল্যায়ন করতে হবে।স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বদলি কি বিএনএ অথবা স্বাচিপের রিকমেন্ডেশনে হয়না? তবে হ্যাঁ, অনেকেই প্রার্থীদের কাছ থেকে উৎকোচ নিয়ে কাজ করে দেন যা আমরা জানি। এটা একেবারেই গর্হিত! কিন্তু এ দায় কি শুধুই নার্স বা নার্স নেতাদের? যদি মন্ত্রণালয় বা ডিজিএনএম এর কেউ এর সাথে জড়িত না থাকে তবে কেউ কোন ভাবেই কোন কাজ করাতে পারবেনা। কারণ কাজ গুলো কোন নার্স প্রশাসনের হাতে নেই!!

৬. আপনি জানেন কি, অনেক ট্রান্সফারের লিস্ট মন্ত্রনালয় থেকে এসে থাকে? এমন রেফারেন্স থাকে যা ডিজি মহোদয়ের পক্ষে ইগনোর করা সত্যিকার অর্থেই কষ্টকর! এক্ষেত্রে মন্ত্রণালয়ে লিস্ট কারা পাঠান? অবশ্যই আপনি আমি কোন উঁচুমহলে যোগাযোগ করি? এ দায় কি ডিজিএনএম বা নেতাদের? মন্ত্রণালয়ে তো আর নেতারা বসে না!!

৭. তেলবাজি ও এক প্রকার দালালী! কেউ কেউ পূর্ব
আমলে কোন সুবিধা করতে না পেরে এখন মাঠে নিজেকে জাহির করতে ব্যস্ত! কিছু সুবিধা আদায় করতে ভিন্ন আংগিকে তৎপর। এদের কাছ থেকে সবাই সাবধান হওয়া বাঞ্চনীয়!

৮.কাঁদা ছুড়াছুড়ি করে নয়! স্বাস্থ্যসম্মত নার্সিং এন্ড মিডওয়াইফারী অধিদপ্তর তৈরি করতে প্রশাসনকে আমাদের প্রত্যেকের জায়গা থেকে প্রত্যেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে হবে। মনে রাখতে হবে ডিজিএনএম আপনার। ডিজিএনএম এর প্রতিটি ইট আপনার। যেখানে আপনার একটা ভাগ আছে। প্রশাসনকে মন খুলে কাজ করতে দিন। তবে আপনার আমার এবং পেশার উন্নয়নে অবশ্যই চোখ কান খোলা রাখবেন। আপনাকে যা দেওয়া হচ্ছে এটা কারো করুনা নয় এটা আপনার পাওনা বা অধিকার!

পরিশেষে বলতে চাই, বর্তমান প্রশাসন নার্সদের সমস্যা দরদ দিয়েই অনুভব করেন। বিশেষ করে মোহাম্মদ আবদুল হাই পিএএ স্যার সত্যিই নার্সদের কল্যানে কাজ করতে চান। ব্যক্তিগত ভাবে উনি আমাদের ভালো বাসেন বিধায় অনেকটা ব্যক্তি উদ্যোগে স্বীয় প্রতিভায় সমস্যার সমাধান কল্পে ঝাঁপিয়ে পড়েন যা খুব একটা অন্য প্রশাসকদের দেখা যায়না!
আপনি হলফ করে বলেন তো দেখি, কোন ক্যাডার শুধুমাত্র ফেইসবুক বা অনলি টেক্সট এর কল্যানে আপনার প্রশ্নের উত্তর এবং চাহিদা পূরন করতে এগিয়ে এসেছেন??

তন্দ্রা শিকদার ম্যাডামও টেক্সটের মাধ্যমে অনেক অভিযোগের দ্রুত সমাধান করতেন। এখন যা আব্দুল হাই স্যার করে থাকেন। অনেক উন্নয়নমূলক কাজের শুরু করে দিয়ে গিয়েছিলেন তন্দ্রা শিকদার ম্যাডাম। প্রথমশ্রেনীতে আমাদের পদায়ন শুধুমাত্র উনার হাত ধরেই এসেছিল। কিন্তু আমরা দেখেছি সুবিধাভোগীরা উনাকেও বাজে ভাষায় মন্তব্য করতে কৃপনতা করেননা! অথচ উনি ডিজিএনএম এ একটা সুন্দর পরিবর্তন করে দিয়ে গিয়েছিলেন।

মানুষের কাজের ভুলত্রুটি থাকতেই পারে এবং আপনি সমালোচনা করতেই পারেন কিন্তু তা হতে হবে গঠনমূলক সমালোচনা। অকথ্য ভাষায় নয়!

নিজে নিজেকে জাহির করতে গিয়ে অন্যকে ব্যপকভাবে ছোট করবেননা! আপনি কি গ্যারান্টি দিতে পারেন যে, মোহাম্মদ আব্দুল হাই স্যার চলে গেলে কোন ফেরেস্তা এসে এই চেয়ার দখল করবেন? পূর্বের অভিজ্ঞতা কি বলে?
যে আমাদের উন্নয়নে কাজ করতে চায় তাকে কাজ করার সুযোগ দিন! আগেই যদি ঢালাওভাবে অভিযোগে ক্ষতবিক্ষত করে ফেলেন তবে আপনি কিছু পাবেন? কিছুই পাবেননা! যা পেয়েছেন তাও হারিয়ে যাবে! পারলে উনাকে সহযোগিতা করেন না হয় একে বারেই চুপ থাকেন। যখন ব্যর্থ হবে তখন সমালোচনা করেন।

প্রফেশন আমাদের, ডিজিএনএম আমাদের!
সুস্থ ডিজিএনএম তো সুস্থ প্রফেশন।

সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ ধারায় থাকুন!

One response to “চলমান ঘটনা : বর্তমান ডিজিএনএম- অজয় বিশ্বাস”

  1. MD.Bodiuzzaman says:

    সমালোচনরা এবারে মধুমখা কথায় বুঝবে না,
    উনারা শক্তের ভক্ত, নরমের জম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বিডিনার্সিংনিউজ.কম
কারিগরি সহায়তায়- সুজিৎ মন্ডল