1. sm.bright420@gmail.com : Asok Halder : Asok Halder
  2. paulsazal16@gmail.com : Sazal Paul : Sazal Paul
  3. rnshakil.cnc@gmail.com : Shafiul Shakil : Shafiul Shakil
  4. sm.bright22@gmail.com : Sujit Mandal : Sujit Mandal
  5. takiakhan109@gmail.com : Takia BSMMU : Takia BSMMU
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১৫ অপরাহ্ন

আমি একজন সিনিয়র ষ্টাফ নার্স, ইউনাইটেড হসপিটাল থেকে বলছিঃ করোনা প্রসঙ্গে

  • আপলোডের সময়ঃ বুধবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২০
  • ৫৫১৫ বার দেখা হয়েছে।
বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

বিডি নার্সিং নিউজঃনাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইউনাইটেড হসপিটালে কর্মরত একজন সিনিয়র ষ্টাফ নার্স করোনা পরিস্থিতে তাদের ভয়াভয়তার কথা জানালেন

আমি একজন #Senior staff Nurse”
বেশকিছু বছর ধরে ইউনাইটেড হসপিটালে কর্মরত আছি
কাজের সুবাদে সময়ে অসময়ে ভালো খারাপ
অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি অনেক
কিন্তু এরকম ভয়াভয় অভিজ্ঞতা
এর আগে কখনো হয়নি আমার,
সারা বিশ্বে করোনা মহামারী আকার ধারন করেছে
এটা আপনার আমার কারোই অজানা নয়,
সরকারী হসপিটাল গুলোর কথা বরাবরই উঠে আসছে
নিউজের পাতায় পাতায়,
কিন্তু প্রাইভেট হসপিটাল গুলোতে
হয়ে যাওয়া ঘটনাগুলো
আজ চাইছি সামনে আসুক,
আজ বলবো (Covid-19)নিয়ে ইউনাইটেড হসপিটালে প্রতিনিয়ত যা ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনা

👇
👇

প্রথমেই সবার কাছে মাফ চেয়ে নিচ্ছি

🙏

আমার সত্যি নামটা প্রকাশ করতে পারছি না
কারন এতে আমার উপর চাপ সৃষ্টি হতে পারে,
আমাদের হসপিটাল ম্যানেজম্যানট
একটা ৬ বেডের অাইসোলেট রুম তৈরী করেছে,
করোনা রোগীদের কথা ভেবে
এতে আমরা তাদের সাথে আছি,
এখানে কিছু টিম তৈরী করা হয়েছে
যারা করোনা সাসপেক্টটেড রোগী নিয়ে কাজ করবে,
যারা এইসব কাজে নিয়োজিত থাকবে
তাদের কিছু দাবি দাওয়া ছিলো,
প্রথম দিকে হসপিটাল কতৃপক্ষ তা মানতে নারাজ হলেও
পরে আমাদের চাপের কারনে সব দাবি দাওয়া মেনে নেয়,
কিন্তু তা সব নাম মাএই,
যার লিখিত কোনো ডকুমেন্ট আমাদের হাতে নেই,
কিন্তু সত্যিকথা বলতে দিনশেষে আমরাও আমাদের পরিবারে ফিরবো তাই আমাদের নিরাপওাটাও জরুরি,
এখন যাই “Emergency Departmenter” দিকে
সবার একটাই দাবি ছিলো পর্যাপ্ত পরিমান PPE

✌

যেটা হসপিটাল ম্যানেজম্যানট
এখন পরযন্ত তা ইনসিউর করতে পারনি,
হ্যা তারা করেছে আমাদের
চ্যানজিং রুম/ডেসিং রুমটাকে ভেংঙে
বড় আকারের একটা অাইসোলেট রুম তৈরী করেছে,
যাতে আরো বেশি করোনা রোগী হসপিটাল নিতে পারে,
এখন আমাদের খাওয়া দাওয়ার কোনো রুম নেই
#আমাদের Emergency এর দুইজন নার্স Covid-19 positive, তাদেরকে হসপিটাল ম্যানেজম্যানট বলতেছে
বাসায় অবস্থান করতে,
কারন তারা বাসা থেকে এসে অফিস করতো তাই
এই অবস্থায় ফ্যামিলির কাছে থাকবে?
হসপিটালের কোনোকিছু করার নেই…।।
#আমাদের “Ultrasound Department “
২ জন নার্সের অলরেডি “Covid-19 positive”
সেই নার্সের সাথে সেদিন কথা বলেছিলো বলে
আমাদের ম্যানেজম্যানটর নাসিং অফিসার
DCNO(Rina Gomes)এর জন্য
সে সেচ্ছায় কোয়ারান্টাইনে চলে গেছে ১৪ দিনের জন্য,
নিজের সেফটির জন্য,
#সেই দুজন নার্সকে অলরেডি
হোস্টেলে তালাবদ্ধ করে রাখা হয়েছে,
শুনেছি পুলিশ এসে নাকি
তাদেরকে কুর্মিটোলা হসপিটালে নিয়ে যাবে,
হসপিটালের কিছু করার নেই এই হসপিটালের নার্সের জন্য,
তারপর যাই হসপিটালের 2nd Flood(ICU,CCU) দিকে
এখানে প্রতিনিয়ত আমরা সাসপেক্টেড
রোগী নিয়ে কাজ করছি,
প্রথম দিকে কোনো PPE আমরা হাতে পাইনি,
এখন PPE হাতে এলেও এর কোয়ালিটি খুবই লো,
যা দিয়ে করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব না
আর N-95 mask আজো হাতে এসে পৌছায় নি
#আমাদের CCU specialist এর ও
Covid-19 positive আসছে,
যেই Doctor টা সমসময় PPE পরে
অবস্থান করতো সবজায়গায়,
বলতে পারেন নিজের সেফটির জন্য
অনেকটা দুরুত্ত নিয়েই রোগীর কাছে যেতো,
সেও রেয়াই পায়নি Covid-19 থেকে
সে তার নিজ বাসায় কোয়ারান্টাইনে আছে,
আমাদের 6th Floor এ দুই চারজন
নার্সকে আইসোলেট করে রাখা হয়েছে
কিন্তু তাদের জন্য নেই কোনো সুব্যবসথা,
বলতে পারনে আটকিয়ে রেখেছে একপ্রকার,
CCU ICU তে বরাবরই ম্যানেজম্যানটের কেউ
এখন আর সশরীরে আসেনা,
ফোনের ওপার থেকে খোজ নেয় ওয়ার্ডের কি অবস্থা?একজন সাসপেক্টেড রোগী নিয়ে
সকল কাজ একজন নার্সের,
ডক্টর রা শুধু দুর থেকে ডিরেকশন দিয়ে যাচ্ছে,
Consultant রা বাসায় আছে
দুইএকজন আসে রোগী দেখতে,
আর ডক্টররা একদিন ডিউটি করে বাকি ৬ দিন রেস্টে আছে,
শুধু আমাদের নার্সদেরই ডিউটি আওয়ার কমেনি,
আমরা তে নার্স,
ও একটা কথা বলা হয়নি আপনাদের
আমাদের ম্যানেজম্যানট চেয়ারম্যান স্যার
গভমেন্ট ফান্ডকে ৫ কোটি টাকার অুনদান দিয়েছে,
বাহ বেশ ভালো কাজ

👏

যেখানে নিজ হসপিটালের স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য
একটু সহানুভূতি ও জোটেনি,
আমাদের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা
সরকারী হসপিটালের নার্সের অনুধান দিচ্ছে,
তারা সরকারী নার্স বলে আর আমরা?
আমাদের না হয় একটু নিরাপওাই দিতেন,
ইউনাইটেড হসপিটাল কতৃপক্ষ আপনাকে
৫ কোটি টাকার অনুদান দিয়েছে,
কই একবারো কি জিজ্ঞেস করেছেন?
তার হসপিটালের স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য
সে কি ব্যবসথা করেছে??
আমরা PPE পড়ে ফেসবুকে ছবি আপলোড
করতে পারবো না,কাউকে বলতে পারবো না আমাদের ইউনাইটেড হসপিটালে করোনা রোগী আছে,
এগুলা মিডিয়াতে আসবে না কেনো?
কেনো এতো লুকোচুরি কেনো??
এই হসপিটালে কাজ করে যদি আমি এফেক্টেড হই
তাহলে ইউনাইটেড আমাকে ছাটাই করে দিচ্ছে,
আর না হয় আমাকে কুর্মিটোলা রেফারড করে দিচ্ছে
আমার দায়বার তাহলে কার..???
একদল সাধারন মানুষ বলছেন
নার্সরা পালিয়ে যাচ্ছে,আমরা এখনো আছি
প্রতিনিয়তই জীবন বাজী রেখে কাজ চালিয়ে যাচ্ছি,
শুধু আমাদের কথাগুলো পৌছে দেন
সবার কাছে
এতটুকুই অনুরোধ

🙏
🙏

আমরা আর পারছি না শুধু একটু নিরাপওা চাইছি…।।

4 responses to “আমি একজন সিনিয়র ষ্টাফ নার্স, ইউনাইটেড হসপিটাল থেকে বলছিঃ করোনা প্রসঙ্গে”

  1. Monir Hossen says:

    একজন ডক্তর যদি রোগীর কাছে একবার যায়, একজন নার্স পাঁচ বার যায়, সেক্ষেত্রে একজন নার্সের প্রটেক্ট আরো বেশি জরুরি। কিন্তু প্রাইভেট সেক্টর গুলোতে পুরোটাই উল্টো। সেফটি সবার জন্য সমান থাকা উচিত।
    হোক সে ডক্টর, হোক সে নার্স, হোক সে ক্লিনার, এককথায় Covid-19 রোগীর ক্ষেত্রে সেবা প্রদানকারী কর্মরত সকল স্টাফের একই রকম সেফটি প্রয়োজন,
    এতে কার কী শিক্ষাগত যোগ্যতা সেটার সাথে তুলনা না করে , সবাইকে সমান সেফটি দেওয়া উচিত।

  2. Manik Parvej says:

    carry on mem

  3. Rafiq says:

    অবশ্যই সরকারের উচিত তদারকি করা এবং হসপিটালের ম্যানেজমেন্ট যত দ্রুত সম্ভব সবার নিরাপত্তার ব্যবস্তা করা এবং আক্রান্ত নার্সদেরকে হসপিটালের একটি নিজস্ব আলাদা ভবনে কোয়ারেন্টের ব্যবস্তা করা

  4. Moynul hassan says:

    United hospital erokom selfish type! Ami kaj korechi 6 years. Sudhu kaj koriae nebe ! Mullaon kom. Allah amader safe korbe.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো খবর
© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। বিডিনার্সিংনিউজ.কম
কারিগরি সহায়তায়- সুজিৎ মন্ডল